ব্রেকিং নিউজ
সড়ক দুর্ঘটনায় হাইমচরের ২ শিক্ষার্থী নিহত কোটা সংস্কারের দাবিতে রাবি-রুয়েট শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ রাজশাহী শিরোইল বাসস্ট্যান্ড এলাকা হতে ২২ জুয়ারী’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৫ হাইমচর সরকারি মহাবিদ্যালয় এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের বিদায় উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত ফরিদগঞ্জে সাবেক এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগ জামালপুরে আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন মাদারগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান সাগরের ঈদ উপহার বিতরণ সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় হাইমচরের ৩ রেমিট্যান্স মৃত্যুতে ওমর শরীফ টিটুর শোক মোহনপুরে পিজি সদস‌্যদের পোল্ট্রি খাদ্য ও উপকরন বিতরন রাজশাহীর জননিরাপত্তা আদালতে হত্যা মামলায় তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

পুরানবাজার ১৭০ টাকা পেঁয়াজ বিক্রিকালে জনতার হট্টগোল

Reporter Name / ১৫৯ Time View
Update : শনিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২৩

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
ভারতের পেয়াঁজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষনা করা হলেও রপ্তানি এখনো বন্ধ হয়নি, কিন্তু তার আগেই বানিজ্যিক এলাকা নামে পরিচিত পুরান বাজার ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট দাম বাড়ালে ঐ সিন্ডিকেটদের প্রতিহত করতে প্রতিবাদে হট্টগোল করলো জনতা। গতকাল চাঁদপুর পুরান বাজার কাঁচামাল ও মুদি দোকানের ব্যবসায়ীরা একই রাতে ৯৫ টাকার পেয়াজের কেজি ১৭০ টাকা বিক্রির প্রতিবাদ জানালো জনতা।
শনিবার সকাল যখন ৯ টা ঠিক তখনি চাঁদপুরের একমাত্র বাণিজ্যিক কেন্দ্র পুরানবাজার পাইকারি পেয়াজের আড়ৎ গুলি খুলতে লাগলো, আর পেয়াজের১৬০-১৭০ টাকা কেজি পাইকারি বিক্রি করতে শুরু করলো ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট , ঠিক তখনি স্থানীয় জনতাসহ, আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা এক হয়ে, মোস্তফা ট্রেডার্সের মালিক মোঃ মোস্তফা মোল্লার আড়তে গিয়ে অতিরিক্ত দামে পেয়াজ বিক্রির কারন জানতে চাইলে, মালিকের সাথে স্থানীয় মাইনুদ্দিন বেপারি, ফজল প্রধানিয়া,হজরত আলি হজুর সাথে বাক-বিতণ্ডা লিপ্ত হলে হযরত আলি মালিক মোস্তফা কে ধাক্কা দিলে হট্টগোল শুরু হয়। এতে করে এলাকার সকল পেয়াজ ব্যবসায়িরা নিজেদের দোকান বন্ধ করে চাঁদপুর চেম্বার অফ কর্মার্সের স্বরনাপন্য হলে, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মানিকের নেতৃত্ব চেম্বার পরিচালক গোপাল চন্দ্র সাহা, চাল ব্যবসায়ি সমিতির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন পাটোয়ারী পুরানবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রাজিব সাহাসহ স্থানীয় ব্যবসায়িরা বসে তাহা আলোচনা করেন, আলোচনা কালে পেয়াজ ব্যবসায়িদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন মোস্তফা মোল্লা,লোকমান বেপারি, শাহিন। ব্যাবসায়িরা বলেন, এল সি বন্ধের ঘোষনায় জেলার ঢাকা চট্রগ্রাম , সহ সব জেলায় পেয়াজ ২ শ টাকা করে বিক্রি করছে। আর আমরা মোকাম থেকে আমদানি করেছি বেশি দাম দিয়ে তাছাড়া বেপারিরা আমাদের বলেছে, তাদের পেয়াজ ১৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি করতে তাই, আমরা ১৬০ টাকা দরে বিক্রি করার শুরু করেছি, তবে তারা আমদানিকৃত কোন রশিদ দেখাতে পারেনি যেখানে ১৬০ কিনবা ১৪০ টাকা ক্রয় করেছে। এদিকে বিভিন্ন সুত্র জানায় যে, পুরানবাজার এর সকল ব্যাবাসায়িরা বৃহস্পতিবার দিনে ৯৮ টাকা দরে পেয়াজ বিক্রি করেছে তাহলে তাদের ক্রয় ছিলো ৯০ টাকার মত, আর সেই পেয়াজ গুলি তারা শনিবার ১৬০-১৭০ টাকায় হাকায়, অথচ, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পরে ৬-৭ টি বড় ট্রাক করে পুরানবাজার পেয়াজ আমদানিকৃত গাড়ি এসেছে। শুক্রবার তারা দোকান বন্ধ রেখে শনিবারে সিন্ডিকেট তৈরি করে প্রতি কেজি পেয়াজে ৫০-৬০ টাকা করে হাতিয়ে নিচ্ছে।

এমন এক পর্যায় বহু চেষ্টা করেও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে বা দিতে পারেনি চেম্বার কর্তৃপক্ষ , তবে, বহুবার ফোন করেও চাঁদপুর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ পরিচালক কে খুজে না পেয়ে মার্কেটিং এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আগামী মাস থেকে এলসি বন্ধের কর্যক্রম শুরু হবে, তখন পেয়াজ আমদানি একে বারে কমে যাবে, যেহেত এখনো পেয়াজ রয়েছে বা আরো এল সির মাধ্যমে আসবে সেহুত পেয়াজের দাম আগের টাই আছে, যদি পূর্বে ১০০ টাকা ক্রয় হয়ে থাকে সব খরচ মিলিয়ে ব্যবসায়িরা ১০% বেশি দরে কেজি প্রতি বিক্রি করতে পারে। তাই বলে এক লাফে ৬০-৭০ টাকা বাড়াতে পারে না, তবে সরকারি খোলার দিনে আমরা ভাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বাজার মনিটরিং করবো, তখন কেউ যদি কোন কারচুপি করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্হা গ্রহন করা হবে। এর পরে সভায় বলা হয় যে আমদানিকৃত ক্রয় থেকে ১০ টাকা বাড়িয়ে কেজি প্রতি বিক্রি করার, অথচ, সন্ধার পরেও বাজার গুরে দেখা যায় ১৫০ টাকা করে পাইকারি কেজি পেয়াজ বিক্রি করছে।

এদিকে গোপনীয় সুত্র জানা যায়, স্হানীয় পেয়াজ ব্যবসায়িরা নিজস্ব কিছু গোডাউন রয়েছে যেখানে শত শত বস্তা পেয়াজ মজুত রয়েছে , যাহা দিয়ে আরো এক মাস চলবে, এক দিকে পেয়াজ মজুত করে আমদানি সংকট আরেক দিকে, ভারতের এলসি বন্ধের নামক, সিন্ডিকেট তৈরির কারখানা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেবার পায়তারা চলছে পুরানবাজার পেয়াজ ব্যাবসায়িদের।

অপর দিকে শুক্রবার এর বাজারে ভারতে ৬৬ টাকা রুপিতে পেয়াজের কেজি প্রতি বিক্রি হলে বাংলাদেশে সব খরচ মিলিয়ে আড়তে আশা পর্যন্ত ১ শ টাকা কেজি হতে পারে সেখানে অধিক টাকা হাতিয়ে ভেক্তাদের পকেট কাটার সমান কাজটি করছে ব্যবসায়িরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
data macau apk togel situs togel terpercaya data macau