1. haimcharbarta2019@gmail.com : haimchar :
  2. saikatkbagerhat@gmail.com : Saikat A : Saikat A
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চাঁদপুরের চান্দ্রায় নৌকার প্রার্থীকে বিজয় করতে এক মত পোষণ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ। হাইমচরে নৌ- পুলিশের ২২ দিনের অভিযান জনগণের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন সাধন করে যাবো,ইউপি মেম্বার প্রার্থী কামাল খান। হাইমচরে মেঘনায় নীলকমল নৌ- পুলিশে অভিযানে শেষেদিনে ৯ জেলে আটক হাইমচর থানা পুলিশ কর্তৃক ০২ জন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ১১ কেজি গাজা সহ গ্রেফতার। হাইমচরে ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের উপশাখা উদ্বোধন কচুয়ায় প্রেমিককে প্রেমিকার ছুরিকাঘাত ॥ অত:পর প্রেমিকার আত্মহত্যা লাকসামে স্বামীর মৃত্যুর খবর শোনে স্ত্রীর মৃত্যু হাইমচর জামিলায়ে মহিলা মাদরাসায় বন্যা আশ্রয়ন ভবন নির্মাণ এলাকা পরিদর্শন নারীদের প্রতিবন্ধকতার গল্প নিয়ে সিনেমা নির্মাণে তুহিন রেজা

নারায়ণের খুনি রাজু সিলেটে আটক, যেভাবে হত্যা করা হয় নারায়ণ চন্দ্রকে

  • Update Time : সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৩১ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক :

চাঁদপুরে মিষ্টিবিক্রেতা নারায়ণ চন্দ্রকে হত্যা করে চুলের বস্তায় ভরে ডাস্টবিনে ফেলে দেয় একই এলাকার সেলুন কারিগর রাজু চন্দ্র শীল।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মালিবাগে পুলিশের সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সংস্থাটির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর চাঁদপুর শহরের বিপণীবাগ মার্কেটে নারায়ণ চন্দ্র ঘোষের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত নারায়ণ চন্দ্র ঘোষ স্থানীয় বাজারে দই-মিষ্টি বিক্রি করতেন।

বিপণীবাগ বাজারের নৈশপ্রহরী ইসমাইল বকাউলের বরাত দিয়ে মুক্তাধর বলেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ওই বাজারের টিপটপ সেলুনের কর্মচারী রাজুকে পানি দিয়ে দোকান পরিষ্কার করতে দেখা যায়। রাজুর কাছে দোকান পরিষ্কারের কারণ জানতে চাইলে তিনি নৈশ প্রহরী ইসমাইলকে বলেন, ধর্মীয় উৎসব থাকার কারণে তিনি দোকান পরিষ্কার করে পুরনো জামা-কাপড়সহ অন্যান্য ময়লা জিনিসপত্র বস্তায় করে নিয়ে যাচ্ছেন। রাজু ওই বস্তাটি বিপণীবাগ মার্কেটের পশ্চিম পাশে শরিফ স্টিল ও পানির পাম্পের স্টাফ রুমের পূর্ব পাশে গলির ভেতরে ফেলে দেন। ওই বস্তা ফেলে রাজু আবারও দোকানে ফিরে আসেন। এরপর রাজু পানি দিয়ে ওই সেলুন পরিষ্কার করতে থাকেন। ১৬ সেপ্টেম্বর সেলুন থেকে ডাস্টবিন পর্যন্ত রক্তের দাগ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে সেলুনের মালিক শ্রীকৃষ্ণকে ডেকে আনলে তিনি দোকান খুলে সেলুনের মেঝেতে রক্তমাখা পানি দেখতে পান। এছাড়াও সেলুনের দেয়ালে, চেয়ারের কভারে, মেঝেতে ও বালতির মধ্যে রক্তের দাগ দেখা যায়। ওই ঘটনার পর পালিয়ে যান রাজু চন্দ্র শীল।

ঘটনাটি বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত হলে তা সিআইডির নজরে আসে। পরে সিআইডি তদন্ত শুরু করে। রাজুকে ধরতে বিভিন্ন জায়গায় চালানো হয় অভিযান। পরে সিলেট শহর থেকে অভিযুক্ত রাজুকে সিআইডি গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাজু সিআইডিকে জানায়, টাকা লেনদেনের কারণে তিনি নারায়ণকে হত্যা করেছেন। তবে কত টাকার লেনদেন ছিল সে বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও
© All rights reserved © 2021 haimcharbarta.com
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!