1. haimcharbarta2019@gmail.com : haimchar :
  2. saikatkbagerhat@gmail.com : Saikat A : Saikat A
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
হাইমচরে ৫ম ধাপে চেয়ারম্যান পদে ৬ জনসহ ৭৩ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৪ নীলকমল ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন সরদার মনোনয়ন পত্র ক্রয় হাইমচরে রায়পুরে অবৈধ বালু ব্যবসায়ীরা বেড়িবাঁধ ফুটো করার অভিযোগ তিনি পুলিশ নন,পুলিশের বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট গায়ে জনতার উদ্দেশ্যে মাইকিং নির্বাচিত হওয়ার পরপরই পারাপারে দুর্ভোগ খুলে দিলেন হাইমচরে আলগী উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হাইমচরে ২ ইউনিয়নে মহিলা সংরক্ষিত সদস্য পদে ৫ জন ও সদস্য পদে ৩০ জন মনোনয়পত্র ক্রয় করেছেন। লাকসামে মৃত গরুর মাংস বিক্রি, জরিমানা ও দোকান সিলগালা হাইমচরে আলগী বাজারে আলিফ নিউ মার্কেট উদ্ভোদন নীলকমল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ বর্ধিত সভায় সালাউদ্দিন সরদার এর পক্ষে তৃনমূল এর সমর্থন

নোয়াখালীতে তিন ব্যাংক কর্মকর্তার ৩১ বৎসর কারাদন্ড, ৮১ অর্থদন্ড।

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫৯ Time View

আহসান হাবীব
স্টাফ রিপোর্টারঃ

নোয়াখালী জেলায় দুদকের দায়ের করা মামলায় তিন ব্যাংক কর্মকর্তার ৩১ বছর সাজা দিয়েছেন জেলা জর্জ আদালত। ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রতারণা, জালিয়াতি ও টাকা আত্মসাতের মামলায় সোনালী ব্যাংক সোনাগাজী ফেনী শাখার তিন কর্মকর্তাকে বিভিন্ন ধারায় ৩১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একইসাথে আসামিদের ৮১লাখ টাকা অর্থদণ্ডও প্রদান করা হয়।
সোমবার (১৫ নভেম্বর) বিকেলে জেলা জজ আদালতের বিশেষ জজ (জেলা জজ) এ এন এম মোর্শেদ খান এ রায় প্রদান করেন।
দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- সোনালী ব্যাংক সোনাগাজী শাখার ম্যানেজার মো. রহিম উল্যাহ খন্দকার, শাখার দ্বিতীয় কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম ও সহকারি অফিসার মো. মিজানুর রহমান।
দুদকের করা দুর্নীতি মামলায় আদালত প্রত্যেকের ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও প্রতারণার দায়ে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২০১১ সালের ২ অক্টোবর থেকে ২০১২ সালের ১৩ আগস্ট পর্যন্ত সাব রেজিস্ট্রার, সোনাগাজীর দলিল রেজিস্ট্রিতে প্রাপ্ত টাকা সরকারি খাতে জমার জন্য সাব রেজিস্ট্রি অফিস থেকে একত্রে চালানে পে-অর্ডার নম্বর, টাকা ও তারিখ উল্লেখ করে ব্যাংকে জমা দেওয়া হয়।
দণ্ডপ্রাপ্ত তিনজন জমাকৃত ১৯ লাখ ৩৬ হাজার ১৬৫ টাকার ১৬৬টি পে-অর্ডার সরিয়ে রেখে পরবর্তীতে নগদে উত্তোলন, পে-অর্ডারের টাকার অংক বাড়িয়ে নগদে উত্তোলন ও সরকারি খাতে জমার জন্য চালানের সাথে ফেরত আসা পে-অর্ডার গায়েব করে নিজেরা গ্রাহকের ভূয়া স্বাক্ষর দিয়ে টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করেন। পরে এ ঘটনায় দুদক নোয়াখালীর সহকারি পরিচালক নুরুল ইসলাম সরকার বাদি হয়ে ২০১৪ সালের ৮ সেপ্টেম্বর সোনাগাজী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পান দুদক নোয়াখালীর তৎকালীন সহকারি পরিচালক মো. মশিউর রহমান।
দুদকের পিপি মো. আবুল কাশেম জানান, রেজিস্ট্রি অফিসের পে-অর্ডারের সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত চারটি ধারায় ৩১ বছরের কারাদণ্ড ও ৮১ লাখ টাকা অর্থদণ্ডের আদেশ দেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও
© All rights reserved © 2021 haimcharbarta.com
Theme Customized By BreakingNews
error: Content is protected !!